খুলনার দাকোপের বাজুয়ায় সুবোধ স্মৃতি কমিউনিটি ক্লিনিকে সরকারি ঔষধ চুরি কালে হাতেনাতে ধরা

অপরাধ

ভ্রাম্যমান প্রতিনিধি :
খুলনার দাকোপে ২৭ নভেম্বর ২০২২ আনুমানিক সন্ধ্যা ৭ টায় সরকারি ঔষধ চুরি করে নিয়ে যাওয়ার সময় জনগনের কাছে ধরা পড়লো সুবোধ স্মৃতি কমিউনিটি ক্লিনিকের প্রধান পুষ্পিতা রায়। ঘটনাটি জানাজানি হলে একই ওয়ার্ডের মেম্বার মাখন ঘরামী ভিন্ন খাতে নেওয়ার পাঁয়তারা চালাচ্ছে। সরকারি সাহায্য থেকে বঞ্চিত করবে, মিথ্যা মামলায় হয়রানি করবে,বড় অফিসার হাতের মুঠোয়, তোমরাই বিপদে পড়বে এমন ও ভয়ভীতি দেখাচ্ছে মর্মে অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগ সূত্রে সরেজমিনে গেলে অত্র প্রতিষ্ঠানের আয়া ছবিরন বলে, আমাক যা বলে আমি তাই করি। সন্ধ্যা ৭ টায় গ্রামের লোকজন এসে আমার বাড়ি থেকে ঔষধ নিয়ে যায় চৌকিদার ও ছিল। দোষ হয়েছে কি না জানতে চাইলে দোষ স্বীকার করে । ৮ নং ওয়ার্ডের মেম্বার মাখন ঘরামী বলেন, ঔষধ গুলো চেয়ারম্যানের কাছে আছে। গৌর বাছাড়কে ফোন দেন চেয়ারম্যানকে ফোন দেন। অথচ চৌকিদার রাখাল বলে,ঔষধ গুলো পুলিশ এসে লিখে নিয়ে আমার হেফাজতে দিয়ে গেছে । আসলে মেম্বার ঔষধ গুলো সাংবাদিকদের না দেখিয়ে মূল ঘটনা অন্যদিকে নেওয়ার তালবাহানা করার অভিযোগ উঠেছে। গ্রামবাসী জানান সকল জনগনকে ঔষধ দেয়না,বলে ঔষধ নেই। ঔষধ নিতে এলে ২/- টাকা করে নেয়। ভালো ঔষধ দেওয়ার নাম করে ইচ্ছে মত অর্থ আদায় করে চলেছে এই পুষ্পিতা রায়। এইচ এ দীপাঞ্জলী বলেন, ‌‌সিএইচসিবি পুষ্পিতা কিছু ঔষধ আয়ার বাড়ি রেখেছিল। কেন প্রশ্নের জবাবে বলেন, আমি বলতে পারবো না। কাজটা ঠিক হয়েছে কিনা জানতে চাইলে বলেন তাও বলতে পারবো না । মুঠোফোনে টিএইচএ দাকোপ বলেন,আপনি এতো দেরিতে জানছেন কেন? স্বাক্ষাতে বললে ভালো হয় না? আসেন আমি তো সবসময় স্টেশনে থাকি। তারপর ও বলছি কিছু রিজেক্ট ঔষধ ছিল। আর সব বিষয়ে জানিনা । সচেতন মহল এই সকল দূর্নীতি বাজদের বিচার চায়।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।