ঢাকা আশুলিয়া থানা যুবলীগের সভাপতি হতে মরিয়া বিএনপির পৃষ্টপোষক রাজু দেওয়ান

রাজনীতি

বিশেষ প্রতিনিধি :
আশুলিয়ায় ত্যাগী আওয়ামী লীগের নেতাদের ছত্র-ছায়ায় ও পৃষ্টপোষকতায় বিএনপি, সম্প্রতি এমনটাই মনে করছেন আশুলিয়াবাসী।
খোঁজ নিয়ে জানা যায় আশুলিয়ার জিরাবো দেওয়ান ইদ্রিস কলেজ মাঠে বিভিন্ন প্রোগ্রামে বিএনপির ক্ষমতাশীন নেতা সালাহউদ্দিন বাবু সহ একাধিক নেতা কর্মীর সাথে একই প্রোগ্রামে আওয়ামী লীগের ত্যাগী নেতা দাবীদার মোঃ রাজু দেওয়ান সদস্য ইয়ারপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ।
বর্তমানে আওয়ামী লীগের মূলদলে থেকে আওয়ামী অংঙ্গ সংগঠন যুবলীগ আশুলিয়া থানা কমিটির সভাপতি হতে মরিয়া। হঠাৎ কেন এই পরিবর্তন।
উক্ত বিষয়ে আশুলিয়া বাসী গন মাধ্যমকে জানান বর্তমানে কবির হোসেন সরকার আহ্বায়ক ও মইনুল ইসলাম ভুইঁয়া যুগ্ম আহ্বায়ক আশুলিয়া থানা কমিটি বিএনপি জামাত জোট সরকারের বিরুদ্ধে সোচ্চার।
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকারের হাতকে শক্তিশালী করার লক্ষ্যে রাজপথের লড়াকু সৈনিক হিসেবে রাজ পথে অবস্থান নেয়ায় বর্তমান আশুলিয়া থানা যুবলীগ। এজন্যই হতভম্ব বিএনপি জামাতের এজেন্ডারা ।
এদের বুকে নৌকা মুখে ধানের শীষ, এককই প্রোগ্রামে আওয়ামী লীগ , বিএনপি এমন কিছু চিত্র বিভিন্ন ফেসবুক আইডিতে ভাইরাল। শুধু তাই নয় সময়ের কন্ঠসর নামে একটি অনলাইন নিউজ পোর্টালে প্রকাশিত হয়েছে সংবাদ । যাহা জনমনে সৃষ্টি হয়েছে আলোচনা ও সমালোচনার ঝড়।

আশুলিয়া থানা আওয়ামী যুবলীগে একাধিক নেতা কর্মীরা বলেন তরুণের অহংকার যুবসমাজের আইকন সৃজনশীলতায় বিশ্বাসী আশুলিয়া মাটি ও মানুষের মাথার মুকুট সু-সংগঠিত যুব নেতা কবির হোসেন সরকার আহ্বায়ক আশুলিয়া থানা যুবলীগ ও মইনুল ইসলাম ভুইঁয়া সাবেক ছাত্র নেতা আশুলিয়া থানা ও যুগ্ম আহ্বায়ক আশুলিয়া থানা যুবলীগ।
পরিশ্রমী এই দুই নেতা, আশুলিয়া থানা যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটি দীর্ঘ প্রায় চার বছর কষ্ট করে সু-সংগঠিত করে বঙ্গবন্ধুর আর্দশে পরিচালনা করে আসছেন। পুর্ণাঙ্গ কমিটি পাবার আসায়।
কিন্তু আজকে হঠাৎ এই বিএনপি এজেন্ডারা উড়ে এসে জুড়ে বসতে চান যুবলীগের সভাপতির আসনে।
কখনো যাদের কে দেখা যায়নি রাজপথে, তারাই আজ বিএনপি জামাত নেতাদের এজেন্ট হয়ে। বিএনপি জামাত জোট নেতাদের সহযোগিতা করতেন সু-সংগঠিত আশুলিয়া থানা যুবলীগের সভাপতি নিতে মরিয়া।
উক্ত বিষয়ে জানতে চাইলে বা সংবাদ প্রকাশ করলে সন্রাসী বাহিনীর মাধ্যমে সংবাদ কর্মীদের মারধর সহ বিভিন্ন হুমকি দেয়া হয়। নিষেধ করা হয় সংবাদ প্রকাশ না করার জন্য।
উক্ত বিষয়ে জানতে কবির সরকার সরকার আহ্বায়ক আশুলিয়া থানা যুবলীগ বলেন আমার দাদা ছবেদ আলী সরকার সাভার উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ছিলেন ও চেয়াম্যান ছিলেন। আমার বাবা গিয়াস উদ্দিন বৃহত্তর কাশিম পুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও বঙ্গবন্ধুর সহচর ছিলেন। আমি কবির হোসেন সরকার, বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক। দলের জন্য যদি কিছু করে থাকি তাহলে আমি আশুলিয়া থানা আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি পদ প্রত্যাশী। তার পরও দল যাকে ভালো মনে করবেন তাকেই দিবেন। পর্ব( ১) চলবে,,,,,,,

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।