কুমিল্লায় হোমনায় করোনার উপসর্গ নিয়ে এক ফুটফুটে শিশুর মৃত্যু

অন্যান্য

অনলাইন ডেস্ক রিপোর্ট :
কুমিল্লায় মামার বাড়ি বেড়াতে এসে করোনা ভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে সাড়ে ৪ বছরের এক ফুটফুটে শিশু কন্যার মৃত্যু হয়েছে। গত ১৭ এপ্রিল শুক্রবার ভোরে তার মৃত্যু হয়।

জানা যায় হোমনা উপজেলার মাথাভাঙা ইউপির বিজয়নগর থেকে শিশুটিকে শুক্রবার ভোরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে। প্রাথমিকভাবে করোনা সন্দেহ হলে শিশুটিকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠিয়ে দেয়া হলে পথেই শিশুটি মারা যায়।

এ ঘটনায় বিজয়নগরের ঐ বাড়িটি সহ পার্শ্ববর্তী আরো কয়েকটি বাড়ি লকডাউন করেছে স্হানীয় প্রশাসন। শিশুটি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার পার্শ্ববর্তী বাঞ্ছারামপুর উপজেলার মায়ারামপুর গ্রামের সুমন মিয়ার মেয়ে।

শিশুটির মা অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় ২০/২৫ দিন আগে ঢাকা থেকে বাবার বাড়ি হোমনা উপজেলার মাথাভাঙা ইউপির বিজয়নগর গ্রামে আসেন। কিছুদিন আগে শিশুটির নানাও কক্সবাজার থেকে এসেছেন বলে জানা যায়।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আবদুছ ছালাম সিকদার জানান, কয়েকদিন আগে থেকেই শিশুটি সর্দি ও জ্বরে ভুগছিল। স্থানীয়ভাবে তার চিকিৎসা করিয়েছেন।

শুক্রবার প্রচণ্ড শ্বাসকষ্ট দেখা দিলে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে। পর্যবেক্ষণ করে করোনার উপসর্গ রয়েছে দেখে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় রেফার করা হয়েছে।

ঢাকা যাওয়ার পথে শিশুটি মারা যায়। শিশুটির নমুনা সগ্রহ করা হয়েছে। পজেটিভ এলে বাকী সদস্যদেরও নমুনা সংগ্রহ করা হবে। ইউএনও তাপ্তি চাকমা বলেন, উপজেলার বিজয়নগর গ্রামে করোনার উপসর্গ নিয়ে শিশুটি মারা যাওয়ায় ঐ বাড়িসহ আরো কয়েকটি বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে।

শিশুটির নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। করোনা পজিটিভ এলে পুরো গ্রামকে লকডাউন করা হবে। স্থানীয়ভাবে দাফন কাফনে ভয়ে কেউ এগিয়ে না আসায় করোনা বিষয়ক নির্ধারিত কমিটির মাধ্যমে শিশুটির দাফন হয়েছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।