প্রেমের কারণে জীবন দিতে হলো পোশাক শ্রমিক উজ্জ্বল কে

অপরাধ

মোঃ রিপন মিয়া আশুলিয়া থেকে :
সাভার আশুলিয়ার ভাদাইল গ্রামে প্রেমের জেরে বন্ধু ও তার সাথে থাকা দূর্বৃত্তদের লোহার রডের আঘাতে প্রাণ গেলো রাকিবুল ইসলাম উজ্জ্বল (২০) নামের এক পোশাক শ্রমিকের।জানা যায় গোলাম রব্বানী ও জুয়েল ফোন করে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে আসে উজ্জলকে,এসময় তাদের মধ্যে প্রেম ঘঠিত বিষয়ে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে লোহার রড স্বজরে আঘাত করে সাথে থাকা দূর্বৃত্তরা এবং রক্তাক্ত জখম করে ঘটনাস্থলে ফেলে চলে যায় তারা। এরপর

সোমবার (৪ জুলাই) সকালে সাভারের এনাম মেডিক্যাল কলেজ অ্যান্ড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয় বলে নিশ্চিত করেন হাসপাতালটির কর্মকর্তা ইউসুফ আলী।

তথ্য সুত্রে জানা যায় শুক্রবার (১ জুলাই) আশুলিয়ার ভাদাইল মধ্যপাড়া রাবেয়া মেমোরিয়াল স্কুলের পাশে উক্ত মারামারির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় সেদিনই আশুলিয়া থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন ভুক্তভোগীর পরিবার।

রাকিবুল ইসলাম উজ্জ্বল বগুড়ার সাড়িয়াকান্দি থানার চন্দনবাইশা গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে। তিনি আশুলিয়ার ভাদাইল এলাকায় মোশাররফের বাসায় ভাড়া থেকে ঢাকা ইপিজেডে ‘প্যাকজার বাংলাদেশ লিমিটেড’ নামে একটি পোশাক কারখানায় কাজ করে আসছিলেন।

এঘটনায় উজ্জ্বলের মামাতো ভাই সজিব সংবাদকর্মীদের বলেন, বেশ কয়েকদিন আগে বন্ধু গোলাম রাব্বানীর ও জুয়েলের সঙ্গে মেয়ে সংগঠিত একটি ঘটনায় উজ্জ্বলের সঙ্গে মারামারি হয় তাদের পরে সেই ঘটনার জের ধরে শুক্রবার রাতে জুয়েল উজ্জ্বলকে ফোন করে বাসার পাশে ডেকে নিয়ে যান।

সেখানে আগে থেকেই পাঁচ থেকে সাতজন লাঠিসোঠা নিয়ে উপস্থিত ছিলেন। তাদের হাতে থাকা লাঠি রোড দেখে সন্দেহ হলে উজ্জ্বল সেখান থেকে চলে আসার চেষ্টা করে।পরে ক্ষুব্ধ হয়ে জুয়েল তার হাত ধরে টেনে নিয়ে মাটিতে ফেলে সবাই মিলে রড দিয়ে এলোপাতাড়ি ভাবে মারপিট করেন। খবর পেয়ে আহত অবস্থায় উজ্জ্বলকে উদ্ধার করে প্রথমে নারী ও শিশু সাস্থ্য কেন্দ্র হাসপাতাল ভর্তি করা হয় পরে অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য এনাম মেডিক্যালে কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। এরপর চিকিৎসাধানী অবস্থায় সোমবার সকালে তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় আশুলিয়া থানায় একটি অভিযোগ দিয়েছি।

এ বিষয়ে সাভার মডেল থানা উপ-পরিদর্শক (এসআই) জাহিদুল ইসলাম জানান, হাসপাতাল থেকে বিষয়টি জনানো হয়েছে। মরদেহ উদ্ধারে হাসপাতালে যাচ্ছি। পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ভুক্তভোগীর পরিবারের সেই অভিযোগ মামলায় রূপান্তরিত হয়েছে। এছাড়া আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে বলেও জানান আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক ও মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা (এসআই) রাজু মণ্ডল।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।